ইলিশ খেতে মাওয়া

ইলিশ খেতে মাওয়া যেতে হবে কেন?-পাঠক এ প্রশ্ন তুলতেই পারেন। আসলেই তো ইলিশ মাছ খেতে কেনো মাওয়া ঘাটে যেতে হবে ! যখন আমাদের নাকের ডগার সামনেই  বিস্তর ইলিশ মাছ তাদের চকচকে দেহ নিয়ে শুয়ে আছে। দামও বেশ সস্তা। কেজি মাত্র ৭০০ টাকা। একটু মূলোমুলি করলে হযতো   ৬৫০ টাকায়   ঠেকতে পারে। কেটে ধুয়ে মশলা মেখে সরিষাতেলে কড়া ভেজে নিলেই হলো। সাথে যদি বেগুন ভাজা আর সাথে শুকনো মরিচ ভাজা-তাহলে তো কথাই নেই। চেটে-পুটে খেয়ে  দুপুরে ভাত-ঘুম। আহ! জীবন কতো সুন্দর। ইলিশ মাছ আর বাঙালী-দুজনে দুজনার।  

ইদানিং একটা হুজুগ চলছে। হুজুগটির নাম ‘আউটিং’। অনেকেরই  সপ্তাহের শুরু থেকেই মনটা উড়ু উড়ু করে । কাজে  তেমন মন বসে না। পকেটে মাল তেমন নেই-তাতে কি হয়েছে, ক্রেডিট কাড আছে না! ধার করে হলেও ঘি খাওয়া আমাদের অভ্যাস। চলে যাই মাওয়া অথবা ঢাকার পাশে গাজীপুরের কোন রিসোর্টে । যাক না কিছু টাকা খসে। সরকারী-বেসকারী ব্যাংকের লোকেরা তো ধার দেওয়া জন্য বসেই আছে। 

 বউ অনেকদিন থেকে ঘ্যানর ঘ্যানর করছে মাওয়া যাবার জন্য। মাওয়া যেয়ে  ইলিশ খাবে। সবাই নাকি মাওয়া যেয়ে ইলিশ খাচেছ মচমচ করে। আমি কৌশলে এড়িয়ে যাই ।  কিন্তুু শেষ রক্ষা আর হলো না। যেতেই হলো। গত ১৬ই ডিসেম্বর ২০২০ বউ,বাল-বাচ্চা, শ্যালিকা, শ্যালিকার  অধাংগ ও তাদের এক বছর বয়সী পূঁচকে মেয়ে সহ রওনা হলাম ।  সাথে লোক বেশী বলে প্রাইভেট গাড়ী নেওয়া গেলো না। মিরপুর ১২ নং থেকে স্বাধীন নামক বাসে শওয়ার হলাম  সকাল দ’শটার দিকে। বিজয় দিবস বলে রাস্তা-ঘাট বেশ ফাঁকা। 

0 Response to "ইলিশ খেতে মাওয়া"

Post a Comment